মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সিটিজেন চার্টার

সিটিজেন চার্টার-

 (ক) মিলনায়তন:-একাডেমিতে ৫০০ আসন বিশিষ্ট লাইট ও সাউন্ড সিস্টেম সুবিধাদিসহ একটি মিলনায়তন আছে। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নাটক, আবৃত্তি, নৃত্যানুষ্ঠান, সেমিনার, সিম্পোজিয়াম ইত্যাদি আয়োজনের জন্য নীতিমালা অনুযায়ী বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান সমূহকে ব্যবহার এর জন্য ভাড়া দেয়া হয়।

 (খ) মহড়া কক্ষ:-দুই রুম বিশিষ্ট দুটি মহড়া কক্ষ রয়েছে। বিভিন্ন নাট্যদল, আবৃত্তি, নৃত্য, সংগীত সংগঠন সমূহ সুন্দরভাবে অনুষ্ঠান আয়োজন করার লক্ষ্যে উক্ত কক্ষগুলোতে মহড়ার জন্য নীতিমালা অনুযায়ী ভাড়া দেয়া হয়।

সাংস্কৃতিক প্রশিক্ষণ:-দেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে আরো গণমুখী ও গতিময়করার লক্ষ্যে শিল্পকলা একাডেমিতে একটি প্রশিক্ষণকেন্দ্র রয়েছে। যেখানে নিয়মিত ও পদ্ধতিগত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সৃজনশীল সংস্কৃতি চর্চার প্রতি দেশের সুধি মহলের অধিকতর আগ্রহ সৃষ্টি করা হয়। সঙ্গীত, নৃত্য, নাটক, আবৃত্তি, তালযন্ত্র, চিত্রকলা সংস্কৃতির এসব বিষয়কে নিছক আনন্দদানের উপকরণের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে শিল্প ও সমাজ জীবনের মান উন্নয়নের ক্ষেত্রে একটি বলিষ্ঠ মাধ্যম হিসাবে গ্রহণ করা । এরই লক্ষ্যে নিম্নে উল্লেখিত বিষয়ে শিল্পকলা একাডেমিতে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

 

#শিশুদের জন্য ০২ (দুই) বছর মেয়াদী ফাউন্ডেশন কোর্স সমূহ:

ক) সঙ্গীত খ) নৃত্য গ) আবৃত্তি ঘ) নাটক ঙ) তবলা

#বিভিণ্ন মেয়াদী পূর্ণাঙ্গ কোর্স সমূহ:

  • সংগীত, নৃত্য, তবলা      --৪ বৎসর মেয়াদী
  • আবৃত্তি, নাটক           --২ বৎসর মেয়াদী
  • দেশীয় বাদ্যযন্ত্র (দোতরা)   --৪ বৎসর মেয়াদী

ফাউন্ডেশন কোর্সের ক্লাস সমূহ শুরু হয় শুক্রবার সকাল ১০ ঘটিকায়।

পূর্ণাঙ্গ কোর্সের ক্লাস শুরু সমূহ বিকাল ৪.৩০ মিনিটের পর থেকে রুটিন অনুযায়ী শুরু হয়।প্রতিবছর ডিসেম্বর মাসের ২০ তারিখ থেকে আবেদন ফরম বিতরণ করা হয়। জানুয়ারি ১ম সপ্তাহে সাক্ষাৎকার গ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভর্তি করা হয়।

  • প্রশিক্ষণ এর সেশন :-জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত।
  • ভর্তির কার্যক্রম :- জানুয়ারি থেকে মার্চ এর মধ্যে যাবতীয় ভর্তির কার্যক্রম শেষ করা হয়।
  • প্রশিক্ষক সংখ্যা :-সর্বমোট ১০(দশ) জন। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত। কণ্ঠসঙ্গীতে-০৩জন, নৃত্যে-০২জন, তবলা-০১জন, আবৃত্তি-০১জন, দেশীয়বাদ্যযন্ত্র-০১জন, তালবাদ্যযন্ত্র সহকারী-০২জন।
  • পরীক্ষার সংক্রান্ত তথ্য :- শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বছরে দুবার পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। প্রথম সাময়িক ও বার্ষিক পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।
  • এছাড়াও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি বিশিষ্ট প্রশিক্ষক দ্বারা বিভিন্ন সময়ে সংগীত, নৃত্য, নাটক, আবৃত্তি, দেশীয় বাদ্যযন্ত্র ও তবলা বিষয়ে উচ্চতর কর্মশালা আয়োজন করে থাকে।
  • একাডেমি কর্তৃক আয়োজিত নিয়মিত অনুষ্ঠানসমূহ :- শহীদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস, মহান স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, বাংলা নববর্ষ বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠান, জাতীয় শিশু দিবস, জাতীয় শোক দিবস, রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠান, নজরুল জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠান, বিশ্ব সংগীত দিবস, বিশ্ব নাট্য দিবস, বিশ্ব নৃত্য দিবস, ঋতু ভিত্তিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বাৎসরিক চারুকলা প্রদর্শনী আবৃত্তি উৎসব, নাট্য উৎসব, লোকজ সাংস্কৃতিক মেলা, একাডেমির সম্মাননা প্রদান, মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, ত্রৈমাসিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ইত্যাদি। এছাড়াও সরকার নির্দেশিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা আয়োজন করা হয়।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter